Alliance for Bangladesh Worker Safety

বাংলা

নেপালের মমমান্তিক ভূ ন্তমকলের ওপর মােেীয় অ্যালেে টশালরর ন্তিিৃন্তি

.

আজশক যন্পাশলর কাঠ ুন্ডু শে ৭.৮ াত্রার ভূ প্র কম্প আঘাে যেশন্শে এবং এর ফশল ১০,০০০ এরও যবপ্রে ান্ুষ প্রন্েে েশেশেন্ ।ভূ প্র কম্পন্শতার কম্পন্ অন্ুভূ ে েশেশে যন্পাল, বাংলাশেে, ভারে এবং েপ্রিন্ এপ্রেোর অন্যান্য প্রকেু অঞ্চশল । যন্পাশল প্রন্েে এবং প্রন্েেশের পপ্ররবাশরর প্রপ্রে আপ্র আন্তপ্ররক গভীর স শবেন্া প্রকাে করপ্রে...

Read Ellen's entire statement here. (PDF)

রানা প্লাজা বিপর্যের দ্বিতীয় বার্ষিকী উপলক্ষে অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটির বিবৃতি

.

এপ্রিল ১৪, ২০১৫ রানা প্লাজা ধসের দ্বিতীয় বার্ষিকী যেখানে এক মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় নিহত হয় ১, ১৩৪ জন শ্রমিক । আমরা আজকে কার্যবিরতি দিয়ে দুর্ঘটনার স্বীকার ব্যক্তিদের এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের স্মরণ করছি – এবং জীবিকা অর্জন করতে গিয়ে বাংলাদেশের কোনো শ্রমিককে যেনো জীবনের ঝুঁকি নিতে না হয় তা নিশ্চিত করতে আমরা নিজেরা আবারও প্রতিশ্রুতবদ্ধ হচ্ছি ।

সম্পূর্ণ বিবৃতিটি পড়ুন এখানে (পিডিএফ )

অ্যালায়েন্সের ১৮ মাসের হালনাগাদ

.

মার্চ ৯, ২০১৫
অ্যালায়েন্সের ১৮ মাসের হালনাগাদ

 

প্রিয় সহকর্মীবৃন্দ

বাংলাদেশের পোশাক শিল্প লক্ষ লক্ষ মানুষের ভালোভাবে বেচে থাকার একটি উপায় । এটি কেবলমাত্র জীবিকা অর্জনেরেই একটি পথ নয়, বরং তারা তাদের পরিবার এবং তাদের দেশের জন্য এক অভূতপূর্ব অর্থনৈতিক সুযোগের সৃষ্টি করছে । যে উদ্দীপনা এবং দৃঢ়তা নিয়ে নারী এবং পুরুষরা তৈরি পোশাক শিল্পে কাজ করে যাচ্ছে তাতে এই খাতের এবং বাংলাদেশের অর্থনীতির তুলনাহীন উন্নয়ন ঘঠছে । উন্নয়নের নতুন স্তরে উত্তরণের যে ভিত্তিভূমি তৈরি হয়েছে তা অন্য কোনোভাবেই সম্ভব ছিলোনা ।

কতিপয় ট্র্যাজেডির কারণে বাংলাদেশে যে পরিবর্তন এসেছে তা সারা বিশ্বের তৈরি পোশাক শিল্পেই এক পরিবর্তন এনেছে । নিরাপত্তা মানদন্ড, শ্রমিক নিরাপত্তা এবং শ্রমিক অধিকারের প্রশ্রে এখন সবার লক্ষ্যই এক । বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশের সরকারি-বেসরকারি অংশিদ্বাররা যদি শ্রমিকদের উন্নয়নের প্রতি গুরুত্ব প্রদান করেন তাহলে বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্প চিরকালের জন্য বদলে যাবে ।

কোনো পোশাক শিল্প শ্রমিককে যেন নিরাপদ কর্ম পরিবেশ এবং একটি পে-চেক এই দুটির একটিকে আর বেছে নিতে না হয় তা নিশ্চিত করতেই ২০১৩ এর জুলাইয়ে গঠিত হয়েছে অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটি । তৈরি পোশাক শিল্পের নিরাপত্তা উন্নয়ন, প্রত্যেকটি পোশাক শিল্পে পরিদর্শন নিশ্চিতকরণ, প্রত্যেক শ্রমিককে প্রশিক্ষণ প্রদান এবং তাদের ক্ষমতায়ন করা, প্রত্যেকটি কারখানার মালিক কর্তৃক সংস্কারের কাজ হাতে নেয়ার যে প্রচেষ্টা অ্যালায়েন্স এবং সদস্য কোম্পনিরা হাতে নিয়েছেন আমি তার জন্য অত্যন্ত গর্বিত ।

যদিও আরও অনেক কাজ করে যেতে হবে, তারপরেও আমি ২০১৩ থেকে এ যাবত পর্যন্ত আমাদের প্রধান অর্জনগুলো সবার দৃষ্টিগোচর করার এবং আমরা এ বছর কোন কাজগুলোকে প্রাধান্য দেব তা জানানোর সুযোগ গ্রহন করতে চাই ।

সম্পূর্ণ প্রতিবেদনটি ডাউনলোড করুন এখানে (পিডিএফ)

অ্যালায়েন্স নব নিযুক্ত প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তার নাম ঘোষণা করছে

.

আসন্ন প্রকাশের জন্য: মার্চ ২, ২০১৫
যোগাযোগ: গুইলারমো মিনেসেস +১ (২০২) ৪৪৫- ১৫৭০/ media@afbws.org

ঢাকা, বাংলাদেশ – অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটি আজকে প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা হিসেবে অগ্নি নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ মার্ক চাব –এর নাম ঘোষণা করছে, তিনি বাংলাদেশে অগ্নি নিরাপত্তা পরিচালনা এবং প্রশিক্ষণ এবং অ্যালায়েন্স সদস্য কোম্পানি যে সব কারখানে থেকে পণ্য উৎপাদন করে থাকে সে সমস্ত কারখানাগুলোর সংস্কার প্রচেষ্টায় নির্দেশনা প্রদান করবেন ।

"মার্ক আমাদের এটা নিশ্চিত করবেন যে অ্যালায়েন্স বাংলাদেশ পোশাক শিল্প শ্রমিকদের জন্য কারখানা সংস্কার এবং অগ্নি নিরাপত্তা কর্মসূচিতে আন্তর্জাতিক মানের জ্ঞান ও দক্ষতা আনয়ন অব্যাহত রাখবেন", বলেছেন অ্যালায়েন্সের স্বতন্ত্র সভাপতি অ্যালেন টশার । "একজন উপদেষ্টা হিসেবে তার ভূমিকা হবে অ্যালায়েন্স কারখানাগুলোর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, যেহেতু তারা আমাদের কঠোর মানদন্ডের সঙ্গে সঙ্গতি নিশ্চিত করে" ।

মাননীয় অ্যালেন টশারের বিবৃতি, বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক সহিংসতায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটির স্বতন্ত্র সভাপতি

.

অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটি-এর স্বতন্ত্র সভাপতি মাননীয় অ্যালেন টশার, বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক সহিংসতায় উদ্বেগ প্রকাশ করে নিম্নলিখিত বিবৃতি প্রদান করেছেন । “ বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটি-এর সদস্যবৃন্দের এবং নেতৃবৃন্দের পক্ষ থেকে, আমি বাংলাদেশ সরকার এবং বাংলাদেশের সকল রাজনৈতিক দলকে যত দ্রুত সম্ভব এই চলমান সহিংসতা বন্ধ করে একটি শান্তিপূর্ণ সংলাপের মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান করার আহবান জানাচ্ছি” ।

ঢাকায় দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক ভবন এবং অগ্নি নিরাপত্তা প্রদর্শনীর আশাতীত সফলতা অর্জন

.

expo2

10,000 অংশগ্রহনকারী এবং ৫০ জন প্রদর্শনকারী জাতির ইতিহাসের এই বৃহত্তম প্রদর্শনীতে অংশগ্রহন করেন ।

ঢাকা, বাংলাদেশ – দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক ভবন এবং অগ্নি নিরাপত্তা বাণিজ্য প্রদর্শনী - বাংলাদেশের ইতিহাসের সর্ববৃহৎ আন্তর্জাতিক ভবন এবং অগ্নি নিরাপত্তা বিষয়ক এই প্রদর্শনীতে সমাবেশ ঘটেছিলো অগ্নি এবং নিরাপত্তা বিষয়ক সরঞ্জাম বিক্রতা, কারখানা প্রতিনিধি এবং অন্যান্য স্টেকহোল্ডারদের- যা এ যাবতকালের বৃহত্তম সমাবেশ । এই প্রদর্শনীতে পোশাক শিল্প নেতৃবৃন্দ এবং নেতৃস্থানীয় আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা সরঞ্জাম বিক্রেতা এবং বিশেষজ্ঞগণ একত্রিত হয়েছিলে এবং বাংলাদেশের নিরাপত্তা বিষয়ক সর্বাধুনিক প্রযুক্তি, টুলস এবং বিশেষজ্ঞদের সাথে পরিচিত হতে পেরেছিলেন ।

তাজরিন ফ্যাশন লিমিটেড-এ অগ্নিকান্ডের দ্বিতীয় বার্ষিকী উপলক্ষে বিবৃতি

.

তাজরিন ফ্যাশন লিমিটেড-এ অগ্নিকান্ডের দ্বিতীয় বার্ষিকী উপলক্ষে বিবৃতি

দুই বছর আগের এই দিনে তাজরিন ফ্যশনের অগ্নিকান্ডে নিহত হন ১১২ জন শ্রমিক এবং আহত হন ২০০জনেরও বেশি শ্রমিক । বাংলাদেশ পোশাক শিল্পে যতগুলো দুর্ঘটনা ঘটেছে এটি তার মধ্যে অন্যতম একটি ভয়াবহ দুর্ঘটনা । এবং এই দুর্ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতেই পোশাক শিল্পে জরুরি সংস্কার অপরিহার্য হয়ে ওঠে । আজকে আমরা নিহত এবং আহতদের স্মরণ করছি এবং তাদের পরিবারদের জানাচ্ছি আমাদের আন্তরিক শ্রদ্ধা ।

পোশাক শিল্পের নিরাপত্তা প্রহরীদের জন্য নতুন অগ্নি নিরাপত্তা প্রশিক্ষণ শুরু

.

পোশাক শিল্পের নিরাপত্তা প্রহরীদের জন্য নতুন অগ্নি নিরাপত্তা প্রশিক্ষণ শুরু
নিরাপত্তা প্রহরী প্রশিক্ষণ, ভবন এবং অগ্নি নিরাপত্তা বিষয়ক প্রদর্শনী এবং শ্রমিক হেল্পলাইন সম্প্রসারণ যা শ্রমিক নিরাপত্তা উন্নয়নের সমন্বিত প্রচেষ্টার অংশবিশেষ ।

ঢাকা, বাংলাদেশ – অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটি পোশাক শিল্প শ্রমিকদের জীবন রক্ষার্থে কারখানার নিরাপত্তা প্রহরীদের প্রশিক্ষণ প্রদানের একটি নতুন উদ্যোগের ঘোষণা প্রদান করছে। ন্যাশনাল ফায়ার প্রটেকশন অ্যাসোসিয়েশন (এনএফপিএ)-এর দিক নির্দেশনা অনুসারে গঠিত এই কোর্স জরুরি মুহুর্তে প্রহরীরা যেন কার্যকরি সাড়া প্রদানে সক্ষম হয় তার জন্য প্রহরীদের প্রস্তুত করবে।

Read the full release here (PDF)

অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটি স্বতন্ত্রভাবে নিরাপত্তা প্রশিক্ষণের প্রভাব মূল্যায়নের জন্য টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়কে সম্পৃক্ত করেছে ।

.

অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটি স্বতন্ত্রভাবে নিরাপত্তা প্রশিক্ষণের প্রভাব মূল্যায়নের জন্য টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়কে সম্পৃক্ত করেছে ।

আজকে অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটি ঘোষণা প্রদান করছে যে ইউনিভারসিটি অব্ টেক্সাস হেলথ সাইন্স সেন্টার অ্যাট হাউসটোন- এর সঙ্গে অ্যালায়েন্স এই মর্মে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে যে ইউনিভারসিটি অব্ টেক্সাস বাংলাদেশ গার্মেন্ট শ্রমিকদের অ্যালায়েন্স কতৃক প্রদেয় প্রাথমিক অগ্নি নিরাপত্তা প্রশিক্ষণের প্রভাব মুল্যায়ন স্বতন্ত্রভাবে পরিচালনা করবে । এই প্রজেক্ট টিমের নেতৃত্ব দেবেন ডঃ হাসনাত আলমগীর,ইউনিভারসিটি অব্ টেক্সাস (ইউটি) স্কুল অব্ পাবলিক হেল্থ অ্যাট দি প্রোগ্রাম ইন ইনভাইরোনমেন্টাল এন্ড অকুপেশনাল হেল্থ সাইন্স- এর সহকারী অধ্যাপক । এই দলটি একটি বৈধ এবং নির্ভরযোগ্য ফলাফল অর্জনের জন্য একটি গবেষণা পরিচালনা করবে, রেনডম জরীপের মাধ্যমে উপাত্ত সংগ্রহ করবে এবং অ্যালায়েন্সের শ্রমিক প্রশিক্ষণের কার্যকারিতার ওপর বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করবে । যেহেতু পরবর্তী বছরগুলোতে অ্যালায়েন্স তার প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আরও বিস্তার ঘটাবে এবং অব্যাহত রাখবে সেহেতু এই প্রতিবেদন কোন কোন ক্ষেত্রে উন্নয়ন ঘটাতে হবে সেই ক্ষেত্রগুলো শনাক্ত করবে ।

প্রকাশিত সম্পূর্ণ বিবৃতিটি পড়ুন এখানে (পিডিএফ)

লগইন

অ্যালায়েন্স সম্পর্কে বারংবার করা প্রশ্ন

বিস্তারিত এফএকিউ –এ দেখুন অ্যালায়েন্স সম্পর্কে বারংবার করা প্রশ্ন এবং সেগুলোর উত্তর

দ্রুত যোগাযোগ

Please use our contact form for general and media inquiries.