Alliance for Bangladesh Worker Safety

বাংলা

সংশোধনী কর্ম পরিকল্পনায় (ক্যাপ) উল্লেখিত সমস্ত মেরামত কাজ সম্পন্ন করেছে আরও ১৩টি অ্যালায়েন্স কারখানা: স্থগিত আরো একটি কারখানা

.

২০১৮ সালের কাছাকাছি এসে অ্যালায়েন্সের শক্তিশালি অগ্রগতি অব্যাহত রয়েছে

ঢাকা, বাংলাদেশ – অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটি আজকে এই মর্মে ঘোষণা প্রদান করছে যে নভেম্বর ১০ তারিখের চতুর্থ বার্ষিকী প্রতিবেদন প্রকাশিত হবার পর থেকে, আরও ১৩টি অ্যালায়েন্স -অধিভুক্ত কারখানা তাদের সংশোধনী কর্ম পরিকল্পনায় (ক্যাপ) উল্লেখিত সমস্ত মেরামত কাজ সম্পন্ন করেছে, যার ফলে সংস্কার কাজ সম্পন্নকারী কারখানার মোট সংখ্যা দাঁড়ালো ২৪৭ ।

" সংস্কার কাজকে অগ্রাধিকার প্রদানের জন্য এবং কর্মচারিদের জন্য নিরাপদ কর্মস্থল গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি পুরনের জন্য এই প্রত্যেকটি কারখানাই প্রশংসার দাবিদার,” বলেছেন অ্যালায়েন্স এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর রাষ্ট্রদূত জিম মরিয়ার্টি ।

ক্যাপ সম্পন্নকারী কারখানাগুলো হলো, অবনি নিট ওয়্যার লিমিটেড, অনন্ত ডেনিম টেকনলোজি লিমিটেড, চেকপয়েন্ট সিস্টেম বাংলাদেশ লিমিটেড, ক্রিয়েটিভ ওয়াশ লিমিটেড, গিবি (বাংলাদেশ) লিমিটেড, ন্যাটকো গ্লোবাল প্যাকেজিং ঢাকা লিমিটেড, রিশাল গার্মেন্টস লিমিটেড, রওয়া ফ্যাশন লিমিটেড, সিলভার কম্পোজিট টেক্সটাইল মিলস, সিম্বা ফ্যাশন লিমিটেড, স্ট্যান্ডার্ড স্টিচেস লিমিটেড. (ওভেন ইউনিট), তারাসিমা অ্যাপারেলস লিমিটেড এবং উইনসাম ফ্যাশন ওয়্যার লিমিটেড ।

সংস্কার কাজকে অগ্রাধিকার প্রদানে ব্যর্থ কারখানার ব্যাপারে অ্যালায়েন্স আপোষ না করার সিদ্ধান্তে অবিচল রয়েছে । পিনারি টেক্সটাইল লিমিটেড কারখানার সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক চ্ছিন্ন করেছে অ্যালায়েন্স, এবং এ যাবত স্থগিত কারখানার মোট সংখ্যা দাড়ালো ১৬৪টি ।

“আমরা আত্নবিশ্বাসি যে, ২০১৮ সালে অ্যালায়েন্স হস্তান্তরের পূর্বেই সমস্ত কারখানার সংস্কার কাজের অধিকাংশই সম্পন্ন হয়ে যাবে, এবং বাংলাদেশে আমাদের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর আমাদের টেকসই অগ্রগতি অব্যাহত থাকবে,” বলেছেন রাষ্ট্রদূত জিম মরিয়ার্টি । অ্যালায়েন্সের প্রতিটি কারখানার বর্তমান স্ট্যাটাস পাওয়া যাবে আমাদের ওয়েবসাইট-এ ।

অ্যালায়েন্স সম্পর্কে বারংবার করা প্রশ্ন

বিস্তারিত এফএকিউ –এ দেখুন অ্যালায়েন্স সম্পর্কে বারংবার করা প্রশ্ন এবং সেগুলোর উত্তর

দ্রুত যোগাযোগ

অনুগ্রহপূর্বক সাধারণ এবং গণমাধ্যম ঊভয় অনুসন্ধানের জন্য এখানে ক্লিক করুন ।