Alliance for Bangladesh Worker Safety

বাংলা

আরও দশটি অ্যালায়েন্স কারখানা পর্যাপ্ত সংশোধনমূলক কর্ম পরিকল্পনা সম্পন্ন করেছে; অন্য নয়টি কারখানার সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক চ্ছিন্ন

.

কারখানার সংস্কার এবং জবাবদিহিতার ওপর অ্যালায়েন্সের গুরুত্বপ্রদান

ঢাকা, বাংলাদেশ - অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেইফটি আজকে এই মর্মে ঘোষণা প্রদান করছে যে মার্চ এবং এপ্রিলে, আরও দশটি অ্যালায়েন্স- অধিভুক্ত কারখানা তাদের সংশোধনমূলক কর্ম পরিকল্পনায় (ক্যাপ) উল্লেখিত সমস্ত মেরামত কাজ সম্পন্ন করেছে, ফলে সংশোধনমূলক কর্ম পরিকল্পনা সম্পন্নকারী মোট কারখানার সংখ্যা দাড়ালো ৭৬-এ ।

কারখানাগুলো হলো: আলিফ প্রিন্ট এন্ড ইএম (এমব্রয়ডারি ভিলেজ), ব্র্যান্ডিক্স অ্যাপারেল বাংলাদেশ লিমিটেড, এনভয় টেক্সটাইলস লিমিটেড, হপ ইয়েক বাংলাদেশ লিমিটেড, কর্ণফুলী সুজ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, লাম মিন অ্যাসোসিয়েটস (ইউনিট -2), সাভার ডাইং এন্ড ফিনিসিং ইন্ডাস্ট্রিজ, ওয়ার্ল্ড ইয়ে অ্যাপারেলস (বিডি) লিমিটেড, ইয়াঙ্গুন (সিইপিজেড) লিমিটেড এবং ইয়াঙ্গুন স্পোর্টস সু ইন্ডাস্ট্রিজ ইউনিট-২।

“সংশোধনমূলক কর্ম পরিকল্পনা সম্পন্ন করার যে প্রতিশ্রুতি ছিলো তা বাস্তবায়নের জন্য আমরা এই সমস্ত কারখানাগুলোকে জানাই আন্তরিক অভিনন্দন” । বলেছেন অ্যালায়েন্স কান্ট্রি ডিরেক্টর জিম মরিয়ার্টি । “এই কারখানাগুলো সংস্কারের প্রতি যে নিবিড় মনোযোগ প্রদান করেছে তা বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পকে নিরাপদ শিল্পে রূপান্তরিত করেছে এবং তা প্রত্যক্ষভাবে মানুষের জীবন রক্ষা করছে”।

এছাড়াও অ্যালায়েন্স যে সমস্ত কারখানা সংস্কার কাজে অগ্রাধিকার প্রদানে ব্যর্থ তাদের বিরুদ্ধে জবাবদিহিতামূলক পদক্ষেপ গ্রহনের ওপর জোর প্রদান করছে । মার্চ এবং এপ্রিলে, অ্যালায়েন্স কমপ্লায়েন্ট কারখানা তালিকা থেকে আরও নয়টি কারখানাকে স্থগিত করা হয়েছে, যার ফলে বর্তমানে স্থগিত কারখানার মোট সংখ্যা দাড়ালো ১৪৬ টি ।

যে সমস্ত কারখানা পর্যাপ্ত সংশোধনমূলক কর্ম পরিকল্পনা (ক্যাপ) সম্পন্ন করেছে এবং যে সমস্ত কারখানার সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক স্থগিত হয়েছে সে সমস্ত কারখানার তালিকা পাওয়া যাবে অ্যালায়েন্স ওয়েবসাইট-এ ।

অ্যালায়েন্স সম্পর্কে বারংবার করা প্রশ্ন

বিস্তারিত এফএকিউ –এ দেখুন অ্যালায়েন্স সম্পর্কে বারংবার করা প্রশ্ন এবং সেগুলোর উত্তর

দ্রুত যোগাযোগ

অনুগ্রহপূর্বক সাধারণ এবং গণমাধ্যম ঊভয় অনুসন্ধানের জন্য এখানে ক্লিক করুন ।