Alliance for Bangladesh Worker Safety

বাংলা

কারখানাগুলো প্রাথমিক কারেকটিভ অ্যাকশন প্ল্যান(CAP)-এ সম্পূর্ণতা অর্জন করছে

নিম্নের তালিকাভুক্ত কারখানাগুলো সফলতার সহিত সংস্কার পর্যায় সম্পন্ন করেছে, যা ক্যাপ ক্লোজার ভেরিফিকেশন ভিজিট ( সিসিভিভি ) দ্বারা যাচাইকৃত । কারেকটিভ অ্যাকশন প্ল্যান-এ তালিকাভুক্ত সমস্ত গুরুতর আইটেম সংস্কার করার জন্য এই সমস্ত কারখানাগুলো প্রশংসার দাবিদার । CAP সম্পন্নকরণের জন্য প্রচুর সময় এবং বিনিয়োগের প্রয়োজন – আর এই বিনিয়োগ হলো শ্রমিক এবং কর্মচারিদের জন্য একটি নিরাপদ কর্মস্থল গড়ে তোলার লক্ষ্যে যা বাংলাদেশ পোশাক শিল্পের একটি ইতিবাচক ভাবমূর্তি গড়ে তুলতে সাহায্য করবে |

অ্যালায়েন্সের শর্তানুসারে অ্যালায়েন্স সদস্য কোম্পানিগুলোর জন্য বাংলাদেশে পণ্য উৎপাদনকারি সমস্ত তৈরি পোশাক কারখানাগুলোতে ভবন নিরাপত্তা মূল্যায়ন আবশ্যক । অনুগ্রহপূর্বক পরিদর্শন বিষয়ক আরও বিস্তারিত জানতে আমাদের মানদন্ড এবং পরিদর্শন বিষয়ক পৃষ্ঠা দেখুন । পরিদর্শন সম্পন্ন হওয়ার পর, কারখানাগুলোকে কারেকটিভ অ্যাকশন প্ল্যান (CAP ) প্রদান করা হয় যেখানে প্রতিটি নন-কমপ্লায়েন্সের জন্য এবং কর্মপন্থার জন্য প্রয়োজনীয় নির্দেশনাবলি প্রদান করা হয় । CAP গ্রহনের সঙ্গে সঙ্গেই সংস্কার পর্ব শুরু হয়ে যায় – কিছু কিছু আইটেম রয়েছে যেগুলো জরুরি ভিত্তিতে সম্পন্ন করার প্রয়োজন হতে পারে, আবার কিছু কিছু আইটেম (যেমন স্প্রিংকলার স্থাপন এবং স্ট্রাকচারাল রেট্রোফিটিং ) সম্পন্ন করতে এক বছরেরও বেশি সময় লাগতে পারে ।

CAP-এ উল্লেখিত সমস্ত নন-কমপ্লায়েন্স সম্পন্ন না হওয়া পর্যন্ত সংস্কার কাজ অব্যাহত থাকবে, যা যাচাই করা হয় সিসিভিভি (CAP Closure Verification Visit)দ্বারা । কারেকটিভ অ্যাকশন প্ল্যান সম্পন্নকরণ নিশ্চিত করার জন্য সিসিভিভি পরিচালনা করা হয়, প্রাথমিক কারখানা পরিদর্শনের সময় শনাক্তকৃত অ্যালায়েন্স মানদন্ড অনুসারে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ এলাকার – যেমন ভবন, বিদ্যূৎ এবং অগ্নি নিরাপত্তা - নন-কমপ্লায়েন্স বিষয়গুলোর প্রয়োজনীয় সংস্কার সম্পন্ন হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করতেই সিসিভিভি পরিচালনা করা হয় । সিসিভিভি চলাকালিন সময়, কারখানাগুলো কারেকটিভ অ্যাকশন প্ল্যান সম্পন্ন করবে, অথবা গুরুতর সমস্যা যদি থেকে থাকে তাহলে সংস্কার অব্যাহত রাখবে ।

কর্মস্থলের নিরাপত্তা উন্নয়ন সংস্কৃতি অব্যাহত রাখতে CAP সম্পন্নকরণ কেবল মাত্র একটি প্রথম ধাপ । অ্যালায়েন্স আশা করছে যে সমস্ত কারখানাই তাদের নিরাপত্তা উন্নয়েন তাদের যে প্রতিশ্রুতি তা অব্যাহত রাখবে ।

কারখানার নাম  ঠিকানা  তারিখ

* অ্যাকর্ড অন ফায়ার এন্ড বিল্ডিং সেফটি ইন বাংলাদেশ এর সঙ্গে কারখানা তার প্রাথমিক ক্যাপ (CAP) সম্পন্ন করেছে । অ্যালায়েন্স মানদন্ড – যা দ্বারা কারখানাগুলোকে মূল্যায়ন করা হয় – গঠিত হয়েছে অ্যালায়েন্স, অ্যাকর্ড, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনলজি (বুয়েট ) এর কারিগরি বিশেষজ্ঞদের যৌথ প্রচেষ্টায় । এই মানদন্ডের পরিপ্রেক্ষিতে, অ্যালায়েন্স অ্যাকর্ড কর্তৃক কারখানা পরিদর্শন এবং প্রতিবেদন, যাচাইকরণ পরিদর্শন, ক্যাপ সম্পন্নকরণ এবং স্থগিতকরণ গ্রহন করে থাকে । অ্যালায়েন্স মানদন্ড এবং এর উন্নয়ন সম্পর্কে আরও বেশি তথ্য পাবেন এখানে

অ্যালায়েন্স সম্পর্কে বারংবার করা প্রশ্ন

বিস্তারিত এফএকিউ –এ দেখুন অ্যালায়েন্স সম্পর্কে বারংবার করা প্রশ্ন এবং সেগুলোর উত্তর

দ্রুত যোগাযোগ

অনুগ্রহপূর্বক সাধারণ এবং গণমাধ্যম ঊভয় অনুসন্ধানের জন্য এখানে ক্লিক করুন ।