Alliance for Bangladesh Worker Safety

বাংলা

অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটি তিনটি কারখানার সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক স্থগিত করেছে

.

ঢাকা, বাংলাদেশ - অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেইফটি এই মর্মে ঘোষণা প্রদান করছে যে, এই সপ্তাহে সফলভাবে সংশোধনী কর্ম পরিকল্পনা অনুসারে সংস্কার কার্যক্রমে অগ্রগতি সাধনে ব্যর্থ হওয়ার কারণে আরো ৩টি কারখানার সাথে ব্যবসায়িক সম্পর্ক স্থগিত করেছে। এযাবত পর্যন্ত অ্যালায়েন্স মোট ৮৩ টি কারখানার সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক চ্ছিন্ন করেছে ।

“শ্রমিকদের নিরাপত্তা আমাদের নিকট সর্বোচ্চ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়,” বলেছেন অ্যালায়েন্সের এ-দেশীয় পরিচালক জিম মরিয়ার্টি ।

“আমাদের সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক রয়েছে এমন সমস্ত কারখানাকেই আমাদের নিরাপত্তা মানদন্ড অনুসারে সংস্কার কাজ সম্পন্ন করতে হবে, অথবা তারা আমাদের সদস্য কোম্পানিগুলোর জন্য পণ্য উৎপাদনের অধিকার হারাবে, কোনো ব্যতিক্রম ছাড়াই” ।

অ্যালায়েন্স সদস্য কোম্পানিগুলোর জন্য পণ্য উৎপাদনকারি কারখানাগুলোতে অ্যালায়েন্স ভবন, বৈদ্যূতিক এবং অগ্নি নিরাপত্তা সংক্রান্ত একটি স্বতন্ত্র পরিদর্শন পরিচালনা করেছে । এরপর প্রত্যেকটি কারখানাকে সংশোধনী কর্ম পরিকল্পনা (CAP) প্রদান করা হয়েছে যেখানে কারখানার কি কি নিরাপত্তা সমস্যা রয়েছে তা বিস্তারিত তুলে ধরা হয়েছে যেন কারখানাগুলো অ্যালায়েন্স নিরাপত্তা মানদন্ড অর্জনে সক্ষম হয় । এছাড়াও অ্যালায়েন্স কারিগরি পরামর্শ প্রদান করে থাকে এবং কারখানাগুলোকে সংস্কার কাজে সহায়তা প্রদানের লক্ষ্যে সহজ শর্তে স্বল্প সুদে ঋণ প্রদানের ব্যবস্থা করেছে ।

বর্তমানে অ্যালায়েন্সের পাঁচ বছরের উদ্যোগের অর্ধেক সময়ে এসে, অ্যালায়েন্স তাদের সমস্ত সক্রিয় কারখানায় ২০১৮ সালের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ সকল সংস্কার কাজ সম্পন্ন করার পথে রয়েছে । আজ পর্যন্ত, অ্যালায়েন্স কারখানাগুলোর সমস্ত নিরাপত্তা সমস্যার অর্ধেকের সংশোধন সম্পন্ন হয়েছে এবং ২৮ টি কারখানা দুই বছর তাদের সংশোধনী কর্ম পরিকল্পনায় উল্লেখিত সমস্যাগুলোর শতভাগ সংশোধনী সম্পন্ন করেছে

আমাদের স্থগিত প্রক্রিয়া সম্পর্কে আরও বেশি তথ্য পেতে পারেন অ্যালায়েন্স সদস্য চুক্তিতে, এবং স্থগিত কারখানাগুলোর সম্পূর্ণ তালিকা পেতে পারেন আমাদের ওয়েবসাইট- এ |

অ্যালায়েন্স সম্পর্কে বারংবার করা প্রশ্ন

বিস্তারিত এফএকিউ –এ দেখুন অ্যালায়েন্স সম্পর্কে বারংবার করা প্রশ্ন এবং সেগুলোর উত্তর