Alliance for Bangladesh Worker Safety

বাংলা

অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটির নতুন কান্ট্রি ডিরকটর নিয়োগদান

.

স্টেকহোল্ডারদের টেকসইমূলক দীর্ঘমেয়াদি প্রচেষ্টায় সম্পৃক্ত করতে এবং ক্রমবর্ধমান নেতৃত্বে ভূমিকা রাখতে দায়িত্ব গ্রহন করছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত জেমস এফ মরিয়ার্টি

ঢাকা, বাংলাদেশ (মে ১৭, ২০১৬ ) – বাংলাদেশ তৈরি পোশাক শিল্প কারখানার (আরএমজি) শ্রমিকদের ক্ষমতায়ন এবং নিরপত্তা উন্নয়নের চলমান প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে, অ্যালায়েন্স ফর বাংলাদেশ ওয়ার্কার সেফটি ( অ্যালায়েন্স ) আজকে অ্যালায়েন্সের নির্বাহী পরিচালক, বাংলাদেশে নিযুক্ত সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত জেমস এফ. মরিয়ার্টিকে অ্যালায়েন্সের কান্ট্রি ডিরেক্টর হিসেবে নাম ঘোষণা করতে যাচ্ছে । এই নতুন দায়িত্ব গ্রহন করে, তিনি কৌশলগত দিকগুলোর তত্ত্বাবধান করবেন এবং গুরুত্বপূর্ণ স্টেকহোল্ডার যেমন বাংলাদেশ সরকার, পোশাক শিল্প, এবং বেসরকারি ও অলাভজনক সংস্থ্যাগুলোর সঙ্গে কাজ করবেন ।

“কারখানার শ্রমিক এবং মালিকদের ক্ষমতায়নে আমাদের অপারেশন টিম তাদের কাজ অব্যাহত রেখেছে এবং গুরুত্বপূর্ণ স্টেকহোল্ডাদের সঙ্গে নিজেদের সম্পৃক্ত করার এবং টেকসইপূর্ণ দীর্ঘমেয়াদি প্রচেষ্টাকে আরও জোরদার করার একটি সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে,” বলেছেন অ্যালায়েন্সের স্বতন্ত্র সভাপতি মাননীয় অ্যালেন টশার । “ নেতৃত্বের ভূমিকায় আমরা রাষ্ট্রদূত মরিয়ার্টিকে পেয়ে অত্যন্ত আনন্দিত । তিনি অত্যন্ত যোগ্য একজন ব্যক্তি এবং আমাদের উদ্দেশ্যের প্রতি ও বাংলাদেশ পোশাক শিল্প শ্রমিকদের প্রতি তার রয়েছে এক গভীর আন্তরিক অঙ্গীকার” ।

অ্যালায়েন্স কারখানাগুলোতে শতভাগ পরিদর্শন সম্পন্ন হয়েছে, ১.২ মিলিয়ন শ্রমিককে কমপক্ষে একবার অগ্নি নিরাপত্তা প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে, এবং ৫০% কারখানার সংস্কার কাজ সম্পন্ন হয়েছে, অ্যালায়েন্স এবং অ্যাকর্ড অন ফায়ার এন্ড বিল্ডিং সেফটি ইন বাংলাদেশ,কারখানার মালিক এবং সরকারের প্রচেষ্টায় যে অগ্রগতি সাধিত হয়েছে সেই অগ্রগতিকে দীর্ঘমেয়াদে টেকসই করার সুযোগ চিহ্নিত করতে পেরেছে অ্যালায়েন্স যেন তৈরি পোশাক শিল্পের অবকাঠামো আরও মজবুত হয় ।

এ দেশীয় পরিচালক হিসেবে, রাষ্ট্রদূত মরিয়ার্টি বাংলাদেশ সরকার এবং ইন্ডাষ্ট্রিকে সহায়তা প্রদানের জন্য এখন থেকে বাংলাদেশে আরও বেশি সময় দেবেন যেন ২০১৮ সালে অ্যালায়েন্সের মেয়াদ শেষ হবার পরে পোশাক শিল্পের উন্নয়ন এবং সম্প্রসারন অব্যাহত থাকে । অ্যালায়েন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মেসবাহ রবীন এলিভেটের, বাংলাদেশে সমস্ত সংস্কার কাজে এবং প্রশিক্ষণ প্রচেষ্টার ডিজাইন, পরিচালনা এবং নির্বাহের একটি ম্যানেজমেন্ট ফার্ম )ভবন এবং অগ্নি নিরাপত্তা বিভাগের দায়িত্বগ্রহনের পর রাষ্ট্রদূত মরিয়ার্টি বাংলাদেশে এসেছেন ।

“মেসবাহ রবীনের নেতৃত্বে, আমরা গত আড়াই বছরে তাৎপর্যপূর্ণ অগ্রগতি সাধন করেছি, এখন আমরা বাংলাদেশি শ্রমিকদের জন্য একটি নিরাপদ পোশাক শিল্প গড়ে তোলার জন্য গুরুত্বপূর্ণ স্টেকহোল্ডারদের আরও বেশি সম্পৃক্তকরণের ব্যাপারে অত্যন্ত আশাবাদি,” বলেছেন রাষ্ট্রদূত মরিয়ার্টি । “২০১৮ সালের পর বাংলাদেশের পোশাক কারখানা এবং শ্রমিকরা যেন নিরাপদে থাকতে পারে তা নিশ্চিতকরণে আমাদের যে অগ্রগতি সেই অগ্রগতিকে আমরা আরও তরান্বিত করতে পারি,

“গত আড়াই বছরে অ্যালায়েন্সে আমরা যে কাজ করেছি তাতে আমি অত্যন্ত গর্বিত,” বলেছেন মি. মেসবাহ রবীন । অ্যালায়েন্সের অভিজ্ঞতা এবং অ্যালায়েন্সের শিক্ষা আমি কাজে লাগাতে চাই অন্যান্য দেশে এবং অন্যান্য শিল্পে” ।

অ্যালায়েন্স সম্পর্কে বারংবার করা প্রশ্ন

বিস্তারিত এফএকিউ –এ দেখুন অ্যালায়েন্স সম্পর্কে বারংবার করা প্রশ্ন এবং সেগুলোর উত্তর

দ্রুত যোগাযোগ

অনুগ্রহপূর্বক সাধারণ এবং গণমাধ্যম ঊভয় অনুসন্ধানের জন্য এখানে ক্লিক করুন ।